আলোকিত রাঙামাটি
  • রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৭

  • || ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
রাঙামাটির উপজেলা ভিত্তিক করোনা আপডেটঃ- রাঙামাটি সদর- আক্রান্ত ৪৫৪, কাপ্তাই- আক্রান্ত ১০৩, কাউখালী- আক্রান্ত ৩০, বাঘাইছড়ি- আক্রান্ত ১৫, বরকল- আক্রান্ত ০৫, লংগদু- আক্রান্ত ১৫, রাজস্থলী- আক্রান্ত ১০, বিলাইছড়ি- আক্রান্ত ১৩, জুরাছড়ি- আক্রান্ত ২৩, নানিয়ারচর- আক্রান্ত ০৯। মোট আক্রান্ত- ৬৭৭, মোট সুস্থ- ৫৬৭, মোট মৃত্যু- ১০ জন।
৩৬৮৯

আসামবস্তীতে কাপ্তাই হ্রদ দখল করে নির্মিত হচ্ছে ৩ তলা বাড়ি

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২০  


রাঙামাটি (সদর) প্রতিনিধিঃ- কাপ্তাই হ্রদ দখলের কারনে দিন দিন ছোট হয়ে আসছে হ্রদের আয়তন। বর্তমান শুস্ক মৌসুমে রাঙামাটি শহরের বিভিন্ন এলাকায় সরকারী খাস জায়গায় বড় বড় ইমারত তৈরীর প্রতিযোগিতায় নেমেছে রাঙামাটির মানুষ। সরকারী কোন অনুমোদন বা রাঙামাটি পৌরসভার কোন প্রকার অনুমোদন ছাড়াই বড় বড় ইমারত তৈরীতে হ্রদ যেমন সংকুচিত হচ্ছে তেমনি কাপ্তাই হ্রদের সৌন্দর্য্যও হারাচ্ছে দিন দিন। 

বর্তমান লকডাউনের সময়ের সুযোগ নিয়ে রাঙামাটি শহরের আসামবস্তী এলাকায় লেকের পাড় ও জলমহাল দখল করে রাতারাতি গড়ে তোলা হচ্ছে বাড়িঘরসহ অবৈধ স্থাপনা। এতে বাড়ছে নানা ঝুঁকি। হুমকিতে রাঙামাটিবাসী, লেক ও তার আশেপাশের এলাকা। আর দূষণের শিকার হচ্ছে জনস্বাস্থ্যসহ পারিপার্শ্বিক পরিবেশ। 

রাঙামাটি শহরের আসামবস্তী এলাকায় দেখা যায়, কাপ্তাই লেকের পাড়ে চলছে দখল করে অবৈধ স্থাপনার কাজ। লেকের পাড়, জলমহাল ও ভাসমান টিলা দখল করে নির্মাণ করা হচ্ছে এই বাড়িঘরের স্থাপনা। অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত হচ্ছে পাকা দালান।

এই বিষয়ে রাঙামাটির কয়েকজন পরিবেশ বাদী বলেন, হ্রদের নাব্যতা দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে। হ্রদের নাব্যতা যেমন হারিয়ে যাচ্ছে তেমনি কাপ্তাই হ্রদের তীরবর্তী এলাকা গুলোতে বড়ো বড়ো ইমারত তৈরীর ফলে কাপ্তাই হ্রদ দিন দিন তার সৌন্দর্য্য হারাচ্ছে। পরিবেশ বাদীরা হ্রদের তীর ঘেষে যারা অপরিকল্পিত অবৈধ স্থাপনা তৈরী করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে রাঙামাটির প্রশাসনের কাছে আবেদন জানান তারা। 

রাঙামাটি আসামবস্তীর অবৈধ বসতবাড়ী স্থাপনকারী বাড়ীর মালিক মোঃ ইসমাইলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি আমার নিজস্ব ও বন্দোবস্তকৃত জায়গায় বাড়ী ঘর নির্মাণ করেছি। এটি কোন খাস সম্পত্তি নয়। এই জায়গা আমি ক্রয় করে নিজের অর্থে ঘর নির্মাণ করছি। 

এই বিষয়ে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ জানান, এসব স্থাপনার বেশিভাগই অবৈধ, অনুমোদিত ও রেকর্ডছাড়া। অপরিকল্পিত স্থাপনা নির্মাণের ফলে রাঙামাটি শহরে জানমালের ঝুঁকি বাড়ছে। হুমকিতে লেক, তার আশেপাশের এলাকা এবং শহরের লোকজন।

তিনি বলেন, যেখানেই অবৈধ দখল হবে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেবে। সরকারী খাস জায়গায় দখল করে ইমারত তৈরীর ফলে কাপ্তাই হ্রদের সৌন্দর্য্য হারিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, অবৈধ স্থাপনাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
রাঙ্গামাটি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর