আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
‌‌কাপ্তাই হ্রদের মাছ উৎপাদনের হারিয়ে যাওয়া গৌরব ফিরিয়ে আনা হবে : মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম
  • শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৬ ১৪২৭

  • || ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে মোট করোনায় আক্রান্ত- ৯২৯, মোট সুস্থ- ৯০২, মোট মৃত্যু- ১৪ জন।
২৩১

ঈদের বৈশিষ্ট্য

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ১ আগস্ট ২০২০  


প্রতিটি মানুষের জীবনে উৎসব যে কতোটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা বোধ হয় এই বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংকট খুব ভালো করে বুঝিয়ে দিয়েছে। মাসের পর মাস ঘরে থেকে কিংবা সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানাদিতে যোগ দিতে না পেরে দিন-রাত সব একাকার হয়ে গেছে।

মুসলিম সমাজের জন্য সবচেয়ে আড়ম্বড়পূর্ণ উৎসব দুটি- ১. ঈদুল ফিতর, ২. ঈদুল আজহা। 

ইসলামের উৎসবগুলোর একটা গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে সব মানুষকে শামিল করার একটা প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা এতে নিশ্চিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। শুক্রবার বেশি বেশি দান করার ব্যাপারে উৎসাহিত করা হয়েছে। ঈদুল ফিতরের সময় (বিশেষ করে খাদ্য-দ্রব্য) ফিতরা দেয়ার ব্যাপারে কঠোর নির্দেশনা এবং ঈদুল আজহার সময়ে কোরবানি দেয়া সহ ইত্যাদি অনুশাসনগুলো সমাজের সবশ্রেণির মানুষকে একই আনন্দে, একই উৎসবে অবগাহন করার সুযোগ করে দেয়।

অন্যান্য ঐতিহ্যগত উৎসবের সঙ্গে ইসলামের ধর্মীয় উৎসবের এখানেই একটি বড় পার্থক্য লক্ষণীয়। যেমন- পহেলা বৈশাখ উদযাপনকালে কেউ কাউকে নতুন কিছু কিনে দিতে বাধ্য নয়। অভুক্ত প্রতিবেশিকে খাবার দেয়ার ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা নেই।

কিন্তু ঈদ! ঈদের উৎসবে সব কিছু নির্ধারিত। ঈদের উৎসবে যে অভাবে আছে, যে কোরবানি করতে পারেনি, যার ঘরে খাবার নেই, তার জন্য (তাদের অধিকার স্বরূপ) সামর্থ্যবানদের প্রতি সুনির্দিষ্ট নিয়ম করে দেয়া হয়েছে।

ঈদুল ফিতর কিংবা ঈদুল আজহার উৎসবের এই হচ্ছে অনন্য বৈশিষ্ট্য। এই বিষয়টা আমাদের উপলব্ধি করতে হবে। তাহলেই মহিমান্বিত হবে ধর্মীয় উৎস, ঈদ উৎসব। সর্বোপরি এ উৎসব হবে আমাদের মহাসম্মিলন।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি