আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
রাঙামাটি জেলায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ২০ জন, এ নিয়ে মোট আক্রান্ত ৬৭৭ রাঙামাটিতে বহুল প্রতীক্ষিত করোনা শনাক্তের পিসিআর ল্যাবের উদ্বোধন
  • শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
রাঙামাটির উপজেলা ভিত্তিক করোনা আপডেটঃ- রাঙামাটি সদর- আক্রান্ত ৪৫৪, কাপ্তাই- আক্রান্ত ১০৩, কাউখালী- আক্রান্ত ৩০, বাঘাইছড়ি- আক্রান্ত ১৫, বরকল- আক্রান্ত ০৫, লংগদু- আক্রান্ত ১৫, রাজস্থলী- আক্রান্ত ১০, বিলাইছড়ি- আক্রান্ত ১৩, জুরাছড়ি- আক্রান্ত ২৩, নানিয়ারচর- আক্রান্ত ০৯। মোট আক্রান্ত- ৬৭৭, মোট সুস্থ- ৫৬২, মোট মৃত্যু- ১০ জন।
১৭০

ঈদের বৈশিষ্ট্য

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ১ আগস্ট ২০২০  


প্রতিটি মানুষের জীবনে উৎসব যে কতোটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা বোধ হয় এই বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংকট খুব ভালো করে বুঝিয়ে দিয়েছে। মাসের পর মাস ঘরে থেকে কিংবা সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানাদিতে যোগ দিতে না পেরে দিন-রাত সব একাকার হয়ে গেছে।

মুসলিম সমাজের জন্য সবচেয়ে আড়ম্বড়পূর্ণ উৎসব দুটি- ১. ঈদুল ফিতর, ২. ঈদুল আজহা। 

ইসলামের উৎসবগুলোর একটা গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে সব মানুষকে শামিল করার একটা প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা এতে নিশ্চিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। শুক্রবার বেশি বেশি দান করার ব্যাপারে উৎসাহিত করা হয়েছে। ঈদুল ফিতরের সময় (বিশেষ করে খাদ্য-দ্রব্য) ফিতরা দেয়ার ব্যাপারে কঠোর নির্দেশনা এবং ঈদুল আজহার সময়ে কোরবানি দেয়া সহ ইত্যাদি অনুশাসনগুলো সমাজের সবশ্রেণির মানুষকে একই আনন্দে, একই উৎসবে অবগাহন করার সুযোগ করে দেয়।

অন্যান্য ঐতিহ্যগত উৎসবের সঙ্গে ইসলামের ধর্মীয় উৎসবের এখানেই একটি বড় পার্থক্য লক্ষণীয়। যেমন- পহেলা বৈশাখ উদযাপনকালে কেউ কাউকে নতুন কিছু কিনে দিতে বাধ্য নয়। অভুক্ত প্রতিবেশিকে খাবার দেয়ার ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা নেই।

কিন্তু ঈদ! ঈদের উৎসবে সব কিছু নির্ধারিত। ঈদের উৎসবে যে অভাবে আছে, যে কোরবানি করতে পারেনি, যার ঘরে খাবার নেই, তার জন্য (তাদের অধিকার স্বরূপ) সামর্থ্যবানদের প্রতি সুনির্দিষ্ট নিয়ম করে দেয়া হয়েছে।

ঈদুল ফিতর কিংবা ঈদুল আজহার উৎসবের এই হচ্ছে অনন্য বৈশিষ্ট্য। এই বিষয়টা আমাদের উপলব্ধি করতে হবে। তাহলেই মহিমান্বিত হবে ধর্মীয় উৎস, ঈদ উৎসব। সর্বোপরি এ উৎসব হবে আমাদের মহাসম্মিলন।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
ধর্ম বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর