আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
বাঙ্গালহালিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনাঃ কাপ্তাইয়ের শিক্ষার্থী নিহত, আহত ২ রাঙামাটিতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘর পাচ্ছেন আরো ৬২৩ গৃহহীন পরিবার
  • শনিবার   ১৯ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪২৮

  • || ০৮ জ্বিলকদ ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে করোনায় নতুন আক্রান্ত আরো ৮ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন- ১৬০৩, মোট সুস্থ- ১৫১৯, মোট মৃত্যু ১৯ জন।

ঈদে এবারও মুখরিত হবে না কাপ্তাইয়ের পর্যটন কেন্দ্রগুলো

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২১  


মোঃ নজরুল ইসলাম লাভলু, কাপ্তাইঃ- অপরুপা কাপ্তাইয়ের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে দেশের বৃহত্তম কৃত্রিম হ্রদ, রয়েছে উঁচু-নিচু পাহাড়, পাহাড়ের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া আঁকা বাঁকা শীতল জলের কর্ণফুলী নদী, নদীর ধারেই গড়ে উঠেছে অনেক পর্যটন কেন্দ্র। প্রতিবছর ঈদ উপলক্ষে পর্যটন কেন্দ্র গুলোতে পর্যটকের ঢল নামলেও গত বছরের মতো এবছরও পর্যটক শূণ্য হয়ে হাহাকার করবে পর্যটন কেন্দ্র গুলো। অবশ্য ইতিমধ্যে বিশ্ব করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে গিয়ে সরকারি নির্দেশ মোতাবেক গত মার্চ মাস থেকে দেশের সব ধরনের পর্যটন কেন্দ্রগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি কাপ্তাইয়ে রয়েছে অনেক পর্যটন স্পট। যেখানে কাপ্তাই ছাড়াও রাঙ্গুনিয়া, রাউজান, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে পর্যটকদের আগমন ঘটতো ঈদ উপলক্ষে। কিন্তু এবারও পর্যটক শূন্য থাকবে সব বিনোদন কেন্দ্র গুলোতে। ঈদ উপলক্ষে কেন্দ্রগুলোতে হাজার হাজার পর্যটকদের আগমনের আনন্দে প্রাণ ফিরে পেলেও এবার সেই স্পট গুলো পর্যটক শূণ্য হয়ে থাকবে প্রাণহীন।

শুধু তাই নয়, এই ঈদ উপলক্ষেই পর্যটকের আগমনে অনেক টাকা আয় হতো কাপ্তাই পর্যটনকেন্দ্র কর্তৃপক্ষের। কিন্তু এবার আয় তো হচ্ছেই না বরং করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে পর্যটন কেন্দ্র গুলো প্রায় ১ মাসের অধিক সময় ধরে বন্ধ থাকার ফলে মালিক পক্ষকে গুনতে হচ্ছে কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতি। যার প্রভাব দেশের পর্যটন শিল্পেও নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

কাপ্তাই উপজেলায় বেশ কয়েকটি পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে যার মধ্যে অন্যতম কাপ্তাই প্রশান্তি পার্ক, জুম রেস্তোরা, বনশ্রী পর্যটন কেন্দ্র, লেক প্যারাডাইস, লেকশো'র পিকনিক স্পট, জীবতলি পিকনিক স্পট, বেরাইন্না লেক, লেকভিউ আইলেন্ডসহ বিভিন্ন জনপ্রিয় পর্যটন স্পট।

কাপ্তাইয়ের শীলছড়ি বনশ্রী পর্যটন কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী রুবাইয়াৎ আক্তার জানান, করোনা ভাইরাসের ফলে প্রায় ১ মাসের অধিক সময় হলো বনশ্রীসহ কাপ্তাইয়ে সব ক'টি পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ রয়েছে। প্রতি বছর ঈদে কাপ্তাইয়ে হাজার হাজার পর্যটক কাপ্তাইয়ে আসতো। এবার সেই সম্ভাবনা নেই, ফলে লাখ লাখ টাকার ক্ষতির মুখে পড়েছে পর্যটন কেন্দ্রগুলো।

এদিকে, কাপ্তাইয়ের বালুচরে অবস্থিত প্রশান্তি পিকনিক স্পটের পরিচালক  নাছির উদ্দিন জানান, কাপ্তাইয়ের অপরুপ সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে পর্যটন মৌসুম ছাড়াও সারা বছর পর্যটকদের আনাগোনা হতো। বিশেষ করে ঈদের ছুটিতে পর্যটকের ঢল নামতো। কিন্তু এবারও করোনার প্রকোপে পর্যটক শূণ্য থাকবে কাপ্তাই।  ফলে এই শিল্পের সাথে জড়িতরা বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

কাপ্তাই ফোরামের এডমিন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এ আর লিমন জানান, নয়নাভিরাম কাপ্তাই লেক, কর্নফুলি নদী, পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, কেপিএম মিল, সীতাপাহাড়, ওয়াগ্গা চা বাগান, চিৎমরম বৌদ্ধ বিহারসহ কাপ্তাইয়ের প্রতিটি পরতে পরতে লুকিয়ে আছে সৌন্দর্য্য। তাই তো সারা বছর কাপ্তাইয়ে পর্যটকের আনাগোনা থাকতো। কিন্তু এবার করোনা ভাইরাসের প্রকোপে কাপ্তাই পর্যটন শূণ্য থাকবে।

একদিন ঘোর অন্ধকার কেটে যাবে, আবার উঠবে সোনালী সূর্য্, আবার কোলাহলে ভরে উঠবে কাপ্তাইয়ের প্রতিটি বিনোদন স্পট এমনটাই সকলের প্রত্যাশা।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি