• বুধবার   ০৩ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২১ ১৪২৭

  • || ১১ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
স্বাস্থ্য বিধি মানা হচ্ছে না, সংক্রমণের আশঙ্কা রাজস্থলীতে রাঙামাটিতে শতভাগ মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতসহ সামাজিক দূরত্ব ও বাজার মনিটরিংয়ে মাঠে নেমেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন নানিয়ারচরে অসহায় ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে ত্রাণের চাল বিতরণ কাউখালীতে জনপ্রতিনিধিদের মাঝে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম বিতরণ রাঙামাটিতে এনজিও গুলোর ঋণ আদায় কার্যক্রম শুরু, বিপাকে ঋণ গ্রহীতরা
২৭৮

করোনা থেকে সেরে উঠলো বানর, শতভাগ সফল ভ্যাকসিন

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৯ মে ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত


বিশ্বজুড়ে মহামারি রূপ নেয়া করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরিতে আশার সঞ্চার করেছে চীন। দেশটির স্থানীয় একটি প্রতিষ্ঠানের তৈরিকৃত করোনার ভ্যাকসিন বানরের শরীরে প্রয়োগ করে শতভাগ সফলতা পাওয়া গেছে বলে দাবি করেছে দেশটির গবেষকরা।

সায়েন্স ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বেইজিং এর সিনোভাক বায়োটেক কোভিড-১৯ এর একটি ভ্যাকসিন তৈরি করেছে, যার নাম দেয়া হয়েছে পিকোভ্যাক (PiCoVacc)। আর ওই সংস্থার গবেষকদের পরীক্ষাতেই এসেছে ইতিবাচক ফলাফল।

ভারতীয় বানরের প্রজাতি ‘রেসাস ম্যাকাকেস’-এর শরীরে এই প্রতিষেধক কাজ করেছে বলে জানা গিয়েছে। চীনা ভ্যাকসিনটি আক্রান্তের দেহে ভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি করতে প্রতিরোধ ক্ষমতা জাগিয়ে তোলে। এই অ্যান্টিবডিগুলি সাধারণ ভাইরাসে আক্রমণ করে তাদের নিষ্ক্রিয় করে দেয়।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, পরীক্ষার জন্য বানরদের কোভিড-১৯ এর সংস্পর্শে আন হয়। এর তিন সপ্তাহ পরে তাদের দেহে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ ঘটে। এরপর কয়েকটি বানরের দেহে পিকোভ্যাকের ডোজ প্রয়োগ করা হলে সেগুলো করোনার সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়ে ওঠে এবং ফুসফুসে কোনোপ্রকার ভাইরাসের উপস্থিতি মেলেনি। অপরদিকে যেসব বানরের দেহে ওই ভ্যাকসিনের প্রয়োগ করা হয়নি তারা ধীরে ধীরে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়।

এপ্রিলের মাঝামাঝি থেকেই ওই ভ্যাকসিন তৈরির কাজ করছে চীনা গবেষকরা। ইতিমধ্যে তারা মানবদেহেও পিকোভ্যাকের ট্রায়াল শুরু করেছে। অন্যদিকে চীনের মিলিটারি ইনস্টিটিউটের তৈরি আরও একটি ভ্যাকসিন পরীক্ষা চলছে মানব শরীরে।

এদিকে দিন দুয়েক আগে ইঁদুরের ওপর চালানো ভ্যাকসিনের পরীক্ষায় সফল হওয়ার দাবি করেছেন ইতালীয় গবেষকরা। তারা জানান, ইঁদুরের দেহে করোনাভাইরাসের অ্যান্টিবডি তৈরি করার পর তা মানব কোষেও কাজ করবে। রোমের স্প্যালানজানি হাসপাতালে বিশেষজ্ঞরা করোনার এই প্রতিষেধক তৈরি করেছেন।

এর আগে করোনার ভ্যাকসিনের প্রাথমিক পরীক্ষায় সফলতার দাবি করেছে ইতালি, ইসরায়েল ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্রের অক্সফোর্ডের জেনার ইনস্টিটিউট জানিয়েছে, আশা করা হচ্ছে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর নাগাদ কোভিড-১৯’র ভ্যাকসিন আবিষ্কার সম্ভব হবে।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর