ব্রেকিং:
স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামী ১লা জুন থেকে রাঙামাটির ৬ টি উপজেলায় লঞ্চ চলাচল শুরু
  • রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
বাঘাইছড়িতে ১৫ প্রতিবন্ধী পেলো প্রধানমন্ত্রীর উপহার বাঘাইছড়ি প্রেস-ক্লাবের স্থায়ী ভবন নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন লংগদুতে ১০টি মাদ্রাসার ৪শত ছাত্রদের মাঝে `প্রধানমন্ত্রীর উপহার` শিশু খাদ্য বিতরণ ‘হাসপাতাল গুলোতে পর্যাপ্ত চিকিৎসা সরঞ্জাম নিশ্চিত করা হবে’ কাঁচামাল সংকটে একসপ্তাহ ধরে কেপিএমের উৎপাদন বন্ধ
১৩৫৬

দূর্গম পাহাড়ের আনাচে কানাচে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন ইউএনও শেখ ছাদেক

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৪ এপ্রিল ২০২০  


রাজস্থলী প্রতিনিধিঃ- সারাদেশে উপজেলা নির্বাহী অফিসাররা নিজ নিজ উপজেলায় সাধারণ লোকজনদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় শিরোনাম হচ্ছেন। তবে কি আলোচনায় না থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ কাজ করছেন না, সেবা পাচ্ছেন না উপজেলার সাধারন লোকজন? এমনটাই মনে হওয়া স্বাভাবিক। প্রকৃত সত্য হচ্ছে-নিউজের আলোচনায় না থাকা এসব উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণও রাতদিন কাজ করে চলেছেন। দুর্গম পাহাড়ের আনাচে কানাচে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছেন ত্রাণ সহায়তা ও সরকারি সেবা। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতেও কঠোর পরিশ্রম করে চলেছেন।

রাঙামাটি জেলার দশটি উপজেলার অধিকাংশ উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের কার্যক্রম বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে যেভাবে ফলাও করে প্রচার হচ্ছে। সেখানে সংবাদের প্রচারে নেই দুর্গম রাজস্থলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শেখ ছাদেকের কার্যক্রম। তিনিও প্রতিদিন ত্রাণ নিয়ে ছুটছেন নিজ নিজ উপজেলার দুর্গম পল্লীগুলোতে। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতেও সেনাবাহিনী, পুলিশের সাথে কাজ করে চলেছেন।

পাহাড়ের দুর্গম পাড়াগুলোতে যেতে দীর্ঘ পথ হেঁটে রীতিমত হাফিয়ে উঠেন। তাঁরপরেও দমে থাকেননি। পরের দিন আবারো ত্রান নিয়ে ছুটে চলেন এই গ্রাম থেকে ঐ গ্রামে। এক পাহাড় থেকে অন্য পাহাড়ে।

জনসংখ্যার দিক দিয়ে দেশের সবচেয়ে ছোট উপজেলা রাজস্থলী। রাঙামাটি ও বান্দরবানের সীমান্তবর্তী এই উপজেলার পল্লীগুলোও বেশ দুর্গম। 

রাজস্থলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শেখ ছাদেক জানান, ‘‘এই উপজেলায় জনসংখ্যা কম, কিন্তু এখানকার পাড়াগুলো একটার চেয়ে আরেকটার দূরত্ব অনেক বেশি। তারপরেও সরকারি নির্দেশনা পেয়ে প্রতিদিন উপজেলার লোকজনদের সরকারি সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছি। উপজেলার এক হাজার ছয়শত লোকজনদের মাঝে সরকারি সহায়তা পৌঁছে দেয়া হবে। ইতোমধ্যে অধিকাংশ লোকজন সহায়তা পেয়েছেন। আগামী ৩/৪ দিনের মধ্যে বাকি লোকজনের কাছে সহায়তা পৌঁছে দেয়া হবে। এ কাজে উপজেলার ইউপি চেয়ারম্যানগণও যথেষ্ট সহযোগিতা করছেন। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে পুলিশ, সেনাবাহিনীর পাশাপাশি উপজেলা প্রশাসনও কাজ করে চলেছে। লোকজনদের সচেতন করতে ইতোমধ্যে মাইকিং সহ নানা প্রচার প্রচারনা করা হয়েছে। সামগ্রিকভাবে বলতে গেলে এই উপজেলার সার্বিক পরিস্থিতি সন্তোষজনক বলে মন্তব্য করেন তিনি।’’

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর