আলোকিত রাঙামাটি
  • শনিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৩ ১৪২৭

  • || ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে নতুন করে আরো ১১ জন করোনায় আক্রান্ত, মোট আক্রান্ত- ১১৮৪, মোট সুস্থ- ১১১৪, মোট মৃত্যু- ১৬ জন।
২৮৪৩

দৃষ্টিনন্দন করা হচ্ছে রাঙামাটি-কাপ্তাই আসামবস্তী সড়ক

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২১  


রাঙামাটি (সদর) প্রতিনিধিঃ- পর্যটকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় ও দৃষ্টি নন্দন হয়ে গড়ে উঠছে সুইজারল্যান্ড খ্যাত রাঙামাটি-কাপ্তাই আসামবস্তী সড়ক। এই সড়ককে আকর্ষণীয় করে তুলতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর দূযোর্গ পল্লী সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে ২ লেইনে উন্নিত করা হচ্ছে। সড়ক উন্নয়নের কাজ শেষ হলে পর্যটকরা নির্বিঘ্নে এই সড়কে বড় গাড়ী নিয়ে যাতায়াত করতে সক্ষম হবে। পর্যটক যতই বেশী হবে দৃষ্টি নন্দন এই সড়কের পাশ ঘেষে গড়ে উঠবে নতুন নতুন পর্যটন স্পট। পর্যটন স্পট গড়ে উঠলে রাঙামাটির অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে এই সড়ক।

রাঙামাটি শহরের আসামবস্তি থেকে কাপ্তাই পর্ষন্ত পাহাড় আর কাপ্তাই হ্রদ বেষ্টিত সৌন্দর্য্যর ভরা ১৮ কিলোমিটার দুই লেইন সড়কের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এই সড়ক নির্মাণের ফলে রাঙামাটি শহর থেকে সহজে কাপ্তাইয়ে পৌছানো যাবে অন্যদিকে এই সড়কে বেসরকারী পর্যটন ষ্পট গড়ে উঠার সম্ভাবনা রয়েছে। চারদিকে পাহাড় আর কাপ্তাই হ্রদের অপরুপ সৌন্দর্য্যর ঘেরা রাঙামাটি শহরের আসামবস্তি থেকে কাপ্তাই পর্ষন্ত দুরত্ব ১৮ কিলোমিটার এই সড়ক দিয়ে শুধুমাত্র ছোট যানবাহন চলাচল করতো। এতে এই সড়ক দিয়ে কাপ্তাই যেতে যেমনি সময় লাগতো তেমনি ঝুকিপূর্ণ ছিল। ফলে নিরাপদ যাতায়াতসহ পর্যটকদের চলাচলের কথা চিন্তা করে স্থাণীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এই সড়কটি দুই লেইন করার উদ্যোগ নিয়েছে। বর্তমানে ৩০ কোটি টাকার ব্যয়ে দুই লেইন সড়কের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। ইতিমধ্যে এই সড়কে বেশ কিছু দুর্ঘটনা পর্যটকদের মুখ ফিরিয়ে নিলেও সড়ক উন্নয়ন হলে এই সড়কের যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হবে এবং পর্যটকদের আনাগোনা বাড়বে।

এদিকে দুই লেইন সড়ক করার কারণে দুই ধারে বেসরকারী পর্যটন স্পট গড়ের উঠার সম্ভাবনা রয়েছে। ইতোমধ্যে বেসরকারী পর্যটন স্পট বড় গাঙ, রাইনা তুগুন, বেরান্নে, ইজোর গড়ে উঠেছে। এছাড়া এই রাস্তায় রয়েছে বৌদ্ধদের ধর্মীয় গুরু ও পরিনির্বান প্রাপ্ত মহাসাধন সাধনানন্দ মহাস্থবির (বনভান্তের) জন্ম স্থানে স্মৃতি মন্দির ছাড়াও রয়েছে ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠীদের গ্রাম ও তাদের জীবনযাত্রা। প্রতিদিন এই মন্দির দেখতে শত শত পর্যটক ভীড় জমান। রাস্তার দুই ধারে ক্ষুদ্র-নৃ গোষ্ঠীরা তাদের তৈরী তাঁত শিল্পের আকর্ষণীয় বস্ত্র ও হাতে তৈরী ব্যাগ ও বিক্রি করে। এছাড়া রাস্তার মধ্যে রয়েছে রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসও। 

রাঙামাটি শহরের আসামবস্তি সড়কে ঘুরতে যাওয়া পর্যটকরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে এই সড়ক ও পাহাড় নদীর  সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে আমাদের মন চাইছে। কিন্তু সড়ক যোগাযাগ ভালো না থাকায় আমরা বেশী উপভোগ করতে পারি না। তাই রাঙামাটি পর্যটকদের কথা চিন্তা করে এলজিইডি এই সড়কের উন্নয়নে কাজ করছে। এই সড়কটি যদি দুই লেইনে হয়ে যায় তাহলে পর্যটকরা নির্ভিঘ্নে যাতায়াত করতে পারবে। 

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রাঙামাটি ট্রেডার্সের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মালিক মোঃ নিজাম উদ্দীন মিশু জানান, সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর আসামবস্তী কাপ্তাইয়ের দুই লেইন সড়ক আগামী মার্চ মাসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন হবে। সম্প্রতি পার্বত্য অঞ্চলের অহংকার ও খাদ্যমন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালূকদার এই সড়কের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন। এই সড়ক দুই লেইনে উন্নতি হলে এই সড়ক দিয়ে পর্যটকরা নিরাপদে চলাচল ও সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারে। ইতিমধ্যে সড়কের বেশ কিছু কাজ শেষ হয়েছে। এই সড়কের নিরাপদ ও প্রসস্ত করতে কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। 

এলজিডি রাঙামাটি নির্বাহী প্রকৌশলী আবু তালেব চৌধুরী বলেন, আসামবস্তি-কাপ্তাইয়ের দুই লেইন সড়ক নির্মাণের কারণের যেমন যোগাযোগ সহজ হবে এবং পর্যটন খাতে ব্যাপক উন্নয়ন ঘটবে। তিনি বলেন, শুধু এই রাস্তা নয় রাঙামাটি জেলার বিভিন্ন এলাকায় দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ সড়কের দৃষ্টি নন্দন ব্রীজ করে দেয়া হচ্ছে। এছাড়াও রাঙামাটির যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আরো উন্নত করতে কানেকটিং সড়ক গুলোতে যেখানে ব্রীজ কালভার্ট ও রাস্তা প্রয়োজন সেখানে স্থানীয় সরকার অধিদপ্তর কাজ শুরু করবে। 

তিনি আরো বলেন, রাঙামাটির সংসদ সদস্য খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদারের নির্দেশে যাতে কোন মানুষ যোগাযোগের জন্য তার কৃষি পণ্য বাজারজাত করতে কষ্ট না হয় তার জন্য সড়ক যোগাযোগ বাড়াতে হবে।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর