আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
নানিয়ারচরে দুই সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে যুবক নিহত তিন পার্বত্য জেলায় নিয়োগ তত্ত্বাবধান করবে মন্ত্রণালয়
  • শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪২৮

  • || ১০ রমজান ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে করোনায় নতুন আক্রান্ত আরো ৩ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন- ১৪৩৬, মোট মৃত্যু ১৭ জন। মোট ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে- ৩২,১৪৭ জনকে।

নানিয়ারচরে মর্টার শেলের আঘাতে শহীদ হন বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আবদুর রউফ

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৮ এপ্রিল ২০২১  


মেহেরাজ হোসেন সুজন, নানিয়ারচরঃ- মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানী মিলিটারি বাহিনীর ঘাতকদের আঘাতে শহীদ হয়েছিলেন ল্যান্সনায়ক শহিদ বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ। বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ ফাউন্ডেশন এর তথ্য অনুযায়ী ১৯৭১ সালের ২০ এপ্রিল তিনি নানিয়ারচর বুড়িঘাটে শহিদ হন, তবে উইকিপিডিয়ার তথ্যমতে ১৯৭১ সালের ৮ এপ্রিল হচ্ছে তার মৃত্যু দিবস।

বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে চরম সাহসিকতা আর অসামান্য বীরত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ যে সাতজন বীরকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান “বীর শ্রেষ্ঠ” উপাধিতে ভূষিত করা হয় আর তিনি তাঁদের অন্যতম।

১৯৪৩ সালের ১ মে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার স্থানীয় এক মসজিদের ইমাম মুন্সি মেহেদি হাসান ও মুকিদুন্নেসার ঘরে জন্মগ্রহণ করেন বাঙালীর এই মহান যোদ্ধা।

পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর বুড়িঘাট গ্রামে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে সম্মুখ সমরে তিনি মর্টার শেলের আঘাতে শহীদ হন। তার সমাধিস্থল করা হয় রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলার বুড়িঘাটের একটি টিলার ওপর।

বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আবদুর রউফ বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের মহান যোদ্ধা এবং এর পাশাপাশি পার্বত্য অঞ্চলের দূর্গম প্রান্তিক এলাকা নানিয়ারচর মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হওয়া এই মহান যোদ্ধাকে নানিয়ারচর উপজেলার গর্ব ও অহংকার হিসেবেও বলা হয়।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি