ব্রেকিং:
রাঙামাটিতে নতুন করে ২ জন করোনায় আক্রান্ত, এনিয়ে মোট আক্রান্ত ৫৮ জন
  • বৃহস্পতিবার   ২৮ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭

  • || ০৫ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
কাপ্তাইয়ে এক আনসার সদস্যের করোনা পজিটিভ বাঘাইছড়িতে কৃষকের কাছ থেকে বোরো ধান সংগ্রহের লটারি অনুষ্ঠিত করোনায় স্কুল বন্ধ কাপ্তাইয়ে অনলাইন ক্লাসের জনপ্রিয়তা বাড়ছে মুষলধারে বৃষ্টি, কাপ্তাইয়ে পাহাড় ধ্বসের আশংকা করোনা প্রতিরোধে রাঙামাটি রেড ক্রিসেন্টের ৯০ লাখ টাকার ‘নগদ অর্থ সহায়তা’ প্রদান
৭৪০

বড় বোন শত কষ্টে থাকলেও আগলে রাখে ছোটদের

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত


মমতাময়ী এক বড় বোন। শত কষ্টের মাঝেও ছোট ভাইটিকে আগলে রেখেছে। ছবিতে যে বড় বোনটিকে দেখতে পাচ্ছেন তার বয়সই বা কত হবে? পাঁচ কিংবা ছয় বছর। আর ছোট ভাইটির বয়স দেড় থেকে দুই বছরের বেশি হবে না! সে কীভাবে বড় বোনের কোলে মাথা রেখে নিশ্চিন্তে রয়েছে দেখতেই পাচ্ছেন ছবিতে।

ঘুমে কাতর এক বোন ছোট ভাইয়ের মাথায় হাত বুলিয়ে দিচ্ছে। নিজের কোল থেকে না সরিয়ে বরং পরম যত্নে শিশুটিকে আগলে রেখেছে। একজন বড় বোন বাবা ও মা উভয়ের দায়িত্বই নিজ কাঁধে তুলে নেয়। সন্তানের মতো করেই আগলে রাখে ছোট ভাই বোনদেরকে। উপরের ছবি থেকেও তাই প্রমাণিত হচ্ছে। 

 

বোনের কোলে ভাই

 

নিজের কষ্ট ছোটদের সামনে প্রকাশ করে না বরং তাদের হাসি মুখ দেখার জন্য প্রাণ পর্যন্ত দিয়ে দিতে পারে। একটি পরিবারে মায়ের পরেই বোনের স্থান। সেও ঠিক যেন মায়ের মতো। যে হাজারো কষ্টে সন্তানের মুখে অন্ন তুলে দিয়ে ও হাসি ফুটিয়ে শান্তি পান।

বোনরা হাসি ভাগ করে নেয়ার এবং অশ্রু মুছে দেওয়ার জন্য সেরা। আসলেই তাই, একজন বোন সৃষ্টিকর্তার পক্ষ হতে অনেক বড় উপহার বলে বিবেচিত। পরিবারের বড় বোনটি না খেয়ে ছোটদের খাওয়ায় আবার নিজে নতুন পোশাক না পরলেও ছোটদের বঞ্চিত করে না। তার কাছেই যেন ছোটদের সব আবদার জমা হয়। 

 

মমতাময়ী বড় বোন

 

এটা চাই, সেটা চাই আরো কত কী? বোনও নাছোরবান্দা বাবা-মা কে ভুলিয়ে হলেও ছোটদের আবদারে সুপারিশ করা যেন তার ওভারটাইম কাজ। তবুও ছোটরা তুষ্ট থাকলেই তার শান্তি। একজন বোন খুব ভালো করে জানে কীভাবে তার ছোট ভাই বোনদের আগলে রাখতে হয়। আপনার মূল্য আর কেউ না বুঝলেও আপনার বোন ঠিকই বুঝবে। 

সেরেনা ও ভেনাস উইলিয়ামসকে সবাই কমবেশি চেনেন! তারা দুই বোন। টেনিস জগতের নামজাদা তারকা। ভেনাস উইলিয়ামস জন্মগ্রহণ করেন ১৯৮০ সালে। ঠিক তার পরের বছরই জন্ম নেন সেরেনা। তারা দু’জনই টেনিসের জনপ্রিয় তারকা। তাদের বাবা রিচার্ড উইলিয়ামস। তার ইচ্ছাতেই দুই বোন ছোট থেকেই টেনিস খেলায় নাম লেখান। তাদের শৈশব কেটেছে টেনিস কোর্টেই। পেশাদার ম্যাচে মোট ২৯ বার মুখোমুখি হয়েছেন তারা। 

 

বিজয়ী ছোট বোন সেরেনা মাথা গুঁজছে বড় বোন ভেনাসের বুকে

 

তবে দুই বোনের লড়াইয়ে সফলতার হার ছোট বোনেরই বেশি। তাই বলে কি বড় বোন মন খারাপ করে কষ্ট পাবে। কখনো না, কারণ সেরেনা জিতলে জিতে যায় ভেনাস। ছোট বোনের সাফল্য নিজ মনে ঠিকই উপভোগ করেন ভেনাস। বড় বোনকে হারিয়ে সাত বার গ্র্যান্ড স্ল্যামের শিরোপা জিতেছেন সেরেনা উইলিয়াম। বোনকে জিতিয়ে ঠিকই জিতে যান ভেনাসও। পেশাদার লড়াইয়ের কাছে যেন রক্তের সম্পর্ক তুচ্ছ। 

তাদের দুই বোনকে দেখলেই বোঝা যায় কতটা আন্তরিক তারা। একজন অপরজনের প্রশংসা করেন তারা কুণ্ঠাহীনভাবে। বড় বোন সম্পর্কে সেরেনা বলেন, ভেনাস কেবল আমার বড় বোনই নন, সে আমার নিজেরই অংশ। সে আমার পৃথিবী। আমার জীবন। সে আমার কাছে সব কিছু। 

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর