আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
খাগড়াছড়িতে মোটরসাইকেল চালককে কুপিয়ে হত্যা
  • বুধবার   ২০ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৭ ১৪২৭

  • || ০৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে নতুন করে আরো ৬ জন করোনায় আক্রান্ত, মোট আক্রান্ত- ১২০৫, মোট সুস্থ- ১১২৫, মোট মৃত্যু- ১৬ জন।
৩১৯৬

মিথ্যা তথ্য দিয়ে জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৩ ডিসেম্বর ২০২০  

কে এই নাজনীন আনোয়ার?

কে এই নাজনীন আনোয়ার?

"টক অব দা টাউন"


রাঙামাটি ডিসি বাংলো পার্ক নিয়ে পাইরেটস রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন পরশু অর্থাৎ গত ১লা ডিসেম্বর-২০২০ যা শহরের “টক অব দা টাউন”। সেখানে জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের লিখিত অভিযোগ এনেছিলেন রেস্টুরেন্ট মালিকদের পাওয়ার অব এটর্নি (!) নাজনীন আনোয়ার। অথচ খোঁজ খবর বা অনুসন্ধান করে জানা যায় সম্পূর্ন ভিন্ন কথা, ভিন্ন রূপ, ভিন্ন মতামত, ভিন্ন অভিযোগ। এখন প্রশ্ন, কে এই নাজনীন আনোয়ার? কি চায় এই নাজনীন আনোয়ার? একের পর এক চারটি মামলা করে জেলা প্রসাশনকে বির্তকে ফেলা! জেলা প্রসাশনের সরকারী জায়গা দখল করা, না জেলা প্রসাশকের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা! না  মায়ের ক্ষমতার অপব্যবহার! না কি পেশী শক্তি প্রদর্শন! কি চায় এই নাজনীন আনোয়ার? এসব প্রশ্ন এখন শহরজুড়ে।  

রাঙামাটি পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসকের বাসভবন সংলগ্ন ডিসি বাংলো পার্কটি অবস্থিত। গত ১৮/১২/২০১৭ তে  ১৩ টি শর্ত সাপেক্ষে মোহাম্মদ হোসেন, পিতাঃ- আবুল হাসেম, সাং- দেবাশীষ নগর, থানাঃ- কোতোয়ালী, জেলাঃ- রাঙ্গামাটি কে দুই (২) বছর মেয়াদী বাৎসরিক ভাড়ার বিনিময়ে ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করা হয়েছিল। পার্কটি মোহাম্মদ হোসেনের নামে ব্যবহারের অনুমতি নিয়ে পক্ষান্তরে নাজনীন আনোয়ার, পিতাঃ- শাহ আনোয়ার, দুলাই পাড়া, ফতেপুর, জেলা চট্টগ্রাম এবং বর্তমানে ভেদভেদী, মুসলিম পাড়া, থানা কোতোয়ালী, জেলা রাঙ্গামাটি, তিনি বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার করতে লাগলেন।

উল্লেখ্য যে, বিগত পার্বত্য চট্টগ্রামের সংরক্ষিত আসনের সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু এর মেয়ে এই নাজনীন আনোয়ার। মা এবং মেয়ে প্রভাব খাঁটিয়ে তৎকালিন জেলা প্রশাসক মান্জারুল মান্নানের নিকট হতে দুই (২) বছর মেয়াদী বাৎসরিক ভাড়ার বিনিময়ে জনপ্রিয় এই পার্কটি ব্যবহারের অনুমতি আদায় করে নেন বলে অভিযোগ রয়েছে।
পার্কটি দখলে নিয়ে নাজনীন আনোয়ার প্রথমেই পাইরেটস নামে (জাহাজের আদলে তৈরী) একটি রেষ্টুরেন্ট তৈরী করেন যা চুক্তির ৮ নাম্বার ধারার সরাসরি লঙ্ঘন। সেখানে সুস্পষ্ট বলা আছে “কর্তপক্ষের লিখিত অনুমতি ব্যতিত পার্কের কোন রূপ পরিবর্তন পরিবর্ধন করতে পারবেন না। পার্ক এলাকায় কোন স্থায়ী অবকাঠামো নির্মাণ করা যাবে না।“

এদিকে সময়ের সাথে সাথে রাঙ্গামাটিবাসীর সকলের প্রিয় এই ডিসি বাংলো পার্কটির পরিবেশের অবনতি হতে থাকে। মোহাম্মদ হোসেনের নামে নেওয়া এই পার্কটির একছত্র অধিপতি বনে যান নাজনীন আনোয়ার এর এই পাইরেটস। অথচ অনুমতি প্রদানের ১১ নাম্বার ধারায় বলা আছে পাকর্টি কাউকে কোনরূপ উপভাড়া বা সাবলীজ দেওয়া যাবেনা।

অন্যদিকে হৈ চৈ করে মাইক/সাউন্ড সিস্টেম বাজিয়ে পার্ক সংলগ্ন মসজিদের পরিবেশ নষ্ট করে, এলাকাবাসীর অসুবিধা সৃষ্টি, উচ্ছৃঙ্খলতা এবং ঘুরে বেড়ানোর পরিবেশ নষ্ট হতে থাকে সমানতালে যা অনুমতি প্রদানের ৫, ৬, ৭ নাম্বার ধারায় লঙ্ঘন। তবে এসবের চেয়ে সবচেয়ে ভয়ংকর তথ্য হলো পার্কটি হয়ে উঠে মাদকের নিরাপদ সেবন ও বিক্রয়ের আবাস্থল হিসাবে।


ছবি:- আলোকিত রাঙ্গামাটি


গত ৬/১২/২০১৯ এ এলাকাবাসী ও সচেতন নাগরিকদের পক্ষে জেলা প্রশাসক বরাবর “ডিসি বাংলো পার্কে অবস্থানরত পাইরেটস রেষ্টুরেন্টে মাদক দ্রব্য সেবন, বিক্রয় এবং অনৈতিক কার্যকলাপ বন্ধ করা প্রসঙ্গে” একটি আবেদন করা হয়। সে আবেদনে বলা হয়, সন্ধ্যা ৭.৩০ পর পার্কটি হয়ে উঠে মাদক দ্রব্য সেবন, বিক্রয় এবং অনৈতিক কার্যকলাপের স্থান হিসেবে এবং গভীর রাতে চলে নারীদের অবৈধ কার্যকলাপ। আবার পড়ুন…. ডিসি বাংলো ও পুলিশ পলওয়েল সংলগ্ন পার্কটিতে সন্ধ্যা ৭.৩০ পর মাদক দ্রব্য সেবন, বিক্রয় এবং অনৈতিক কার্যকলাপের স্থান হয়ে দাঁড়ায়, কি লজ্জার! কি ভীষণ দুঃখের! আবেদনে আরো বলা হয়, নিয়োগকৃত স্টাফ/কর্মচারীরা মাদক ব্যবসা করতে অস্বীকার করলে তাদের ছাটায় করা হয় এবং নতুনদের এনে আবার মাদক ব্যবসা শুরু করে এই নাজনীন আনোয়ার।

এদিকে গত ৭/৮/২০২০ তারিখে সহকারী কমিশনার ও নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেটের মোবাইল কোর্টের অভিযানে পার্কের পাইরেটস রেষ্টুরেন্টে  অবৈধ অবস্থানকারী মোঃ ইরফান হুসেন স্বীকার করে বলেন, “ ৬/৭/২০২০ তারিখে বিকাল আনুমানিক ৫টা ২০ ঘটিকায় সাবেক সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনুর মেয়ে নিপুন ম্যাডাম আমাকে পার্কের পেছনের গেইটের ২টি তালা ভেঙ্গে ফেলতে বলেন এবং আমি আর জয় (পাইরেটস রেষ্টুরেন্টের আরেক কর্মচারী) তালা ভেঙ্গে ফেলি এবং নিপুন ম্যাডাম পার্কে প্রবেশ করেন“।

অন্যদিকে রবিবার (২৯ অক্টোবর-২০২০) রাত ১০ টায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর রাঙামাটি জেলা শাখার পরিদর্শক শিবনাথ শাহা ও জেলা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সাগর এর নেতৃত্বে রাঙামাটি ডিসি বাংলো পার্কে এ অভিযান পরিচালনা করে মাদকসহ হাতেনাতে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে রাঙামাটি মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, পাইরেটস রেষ্টুরেন্টের কর্মচারী/কেয়ারটেকার ইরফান (২৫), সাইফ (২০), নাইম (২৪) ও প্রভাষ চাকমা (২১)।

 ডিসি বাংলো পার্ক সংলগ্ন মসজিদের ঈমাম মোঃ রুকনোজ্জামান বলেন, প্রকৃত মুসলমান মিথ্যা বলে না আর আমি একজন ঈমাম। আমি কখনোই মিথ্যা বলতে পারি না। অবশ্যই প্রায়শঃ প্রতিরাতের গভীরে পার্কের ভিতরে পাইরেটসের দোকানে লোকজন দেয়াল/গেইট টপকিয়ে প্রবেশ করে হৈ চৈ হৈ হুল্লোর করে ও মদ গাঁজা সেবন করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী বলেন, পার্ক ব্যবহারের মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও ব্যবহারকারী প্রশাসনকে চ্যালেঞ্জ করে অন্যায় ও বেআইনিভাবে পার্কটি দখলে রেখে নিষিদ্ধ কার্যকলাপ চালিয়ে আসছে যা সবাই জানে। এখন কোথায় ডিসি? কোথায় এসপি?এটা উনাদের পার্ক, উনারা যখন চুপ আমরা সাধারণ জনতা আর কি বা করতে পারি বলেন!

বিগত পার্বত্য চট্টগ্রামের সংরক্ষিত আসনের সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু এর মেয়ে ও পাইরেটসের মালিক নাজনীন আনোয়ার সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পার্কটি মোহাম্মদ হোসেনের নামে হলেও আমরা চারজন অংশীদারী মূলে মালিক। পার্কটি ছাড়ার জন্য প্রশাসন আমদের লিখিত কোন কাগজ দেননি। বরং আমি সেখানে অনেক টাকা বিনিয়োগ করে স্থাপনা তৈরী করেছি। মাদক সেবন ও বিক্রী সব সাজানো।

অন্যদিকে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ বলেন, “দেখুন ব্যক্তিগত ভাবে আমি এই নাজনীন আনোয়ার কে চিনিও না বা উনার সাথে আমার কোন ব্যক্তিগত সম্পর্কও নেই। আমরা সরকার বা জনগণের জন্য কাজ করি। পার্কের সম্পত্তিটি যেহেতু সরকারের সুতরাং তার রক্ষাণাবেক্ষনের দায়িত্বও আমাদের এবং আমি কখনোই উনার নামে মামলা করিনি। উনি বরং আমি ও আমার কর্মচারীদের বিরুদ্ধে চারটি মামলা করেছেন। আমরা সঠিক পথে থেকে দেশ ও জনগণের সেবা করে যাব এবং যাচছি যা আমাদের দায়িত্ব। দুঃখের বিষয় হলো এই নাজনীন আনোয়ার সাংবাদিক সম্মেলনের ব্যানারে সরাসরি আমার নাম উল্লেখ করেছেন যা আমাকে বিব্রত করেছে এবং আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এ আমার জন্য অসন্মান জনক ও। আমরা দেশ জাতি জনগণের সম্পত্তি রক্ষায় দৃঢ় প্রতিজ্ঞ এবং কোন অন্যায় অনিয়মের কাছে মাথা নত করিনি, করবো না। “

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
রাঙ্গামাটি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর