আলোকিত রাঙামাটি
  • শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭

  • || ১৩ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে করোনায় মোট আক্রান্ত- ১২৫৮, মোট সুস্থ- ১২১১, মোট মৃত্যু- ১৬ জন।

যারা কোভিড-১৯ টিকা নিতে পারবেন না

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ৩০ ডিসেম্বর ২০২০  

ফাইল ছবি


জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে অথবা ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম দিকে বাংলাদেশ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনার টিকা পাওয়ার আশা কথা জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। একইসঙ্গে মে অথবা জুন মাসের ভেতরে কো-ভ্যাক্সের আওতায় ভ্যাকসিন পাবে। যেখান থেকে দেশের জনগোষ্ঠীর ২০ শতাংশ মানুষকে ভ্যাকসিন দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

প্রাথমিকভাবে ২০ শতাংশ যারা টিকা নেবেন তাদের নির্ধারণ করার জন্য দেশে এরই মধ্যে কোভিড-১৯ টিকা ব্যবস্থাপনার জন্য জাতীয় পর্যায়ে তিনটি কমিটি গঠিত হয়েছে। জাতীয় কোভিড-১৯ টিকা বিতরণ ও প্রস্তুতি পরিকল্পনার প্রাথমিক খসড়া এরই মধ্যে জমা দেয়া হয়েছে অনুমোদনের জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে।

খসড়া পরিকল্পনা অনুসারে মোট চারটি পর্যায়ে বাংলাদেশের ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেয়া হবে। বাকি ২০ শতাংশকে হার্ড ইমিউনিটির (গণরোগ প্রতিরোধক্ষমতা) কারণে টিকা দেয়ার প্রয়োজন পড়বে না।

কোভিড-১৯ টিকা যারা নিতে পারবেন না সে প্রসঙ্গ গণমাধ্যমকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ২০ বছরের নিচে কাউকেই ভ্যাকসিন দেয়া হবে না। এছাড়া দেশের এক কোটি মানুষ আছেন দেশের বাইরে। বছরে গর্ভবতী নারীর সংখ্যা প্রায় ৩৫ লাখ এবং আরো কিছু অসুখ রয়েছে যাদেরকে এই ভ্যাকসিন দেয়া যাবে না। তাতে করে প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি মানুষ এই মুহূর্তে ভ্যাকসিনের টিকার প্রয়োজন হবে না অর্থ্যাৎ তারা কোভিড ভ্যাকসিন কার্যক্রমের বাইরে থাকবেন।

তিনি জানান, প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে। কাজেই ভ্যাকসিন পাওয়া এবং না পাওয়ার মধ্যে খুব বেশি গ্যাপ থাকবে না। যেটুকু গ্যাপও থাকছে, সেটাও পর্যায়ক্রমে পূরণ করে ফেলা হবে।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি