আলোকিত রাঙামাটি
  • শুক্রবার   ৩০ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১৫ ১৪২৭

  • || ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে মোট করোনায় আক্রান্ত- ৯২৯, মোট সুস্থ- ৯০২, মোট মৃত্যু- ১৪ জন।
৪৯৯

হোমনার ইউএনও তাপ্তি চাকমা করোনায় আক্রান্ত

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ২৮ জুন ২০২০  

ইউএনও তাপ্তি চাকমা


কুমিল্লার হোমনার ইউএনও তাপ্তি চাকমা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার সন্ধ্যায় তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে।

এদিকে ইউএনও’র করোনা পজিটিভের খবরে উপজেলাবাসীরা তার সুস্থতা কামনা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দোয়াসহ নানাভাবে শুভকামনা জানিয়েছেন অনেকে।

এদিন ইউএনও ও তার সরকারি গাড়িচালক, পিয়ন, নাইটগার্ডসহ নতুন মোট ২০ জনের করোনা আক্রান্তের রিপোর্ট পাওয়া যায়। এ নিয়ে উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৯ জনে।

ইউএনও তাপ্তি চাকমা উপজেলায় তার সরকারি বাসভবনে এবং বাকিরা হোম আইসোলেশনে আছেন।

সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে ইউএনও তাপ্তি চাকমা নিজে তার করোনা আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

গত ২২ জুন সকালে উপজেলা পরিষদের দাফতরিক ফাইলপত্র সই করেছিলেন। ওইদিন বিকেলে জানতে পারেন তাদেরই একজন করোনা পজিটিভ। সেভাবেই তিনি সংক্রমিত হতে পারেন বলেই ধারণা করছেন ইউএনও তাপ্তি চাকমা। 

এরইমধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ, বিস্তার ও এর প্রভাব মোকাবিলায় সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সহযোগিতায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার মাধ্যমে বাজার নিয়ন্ত্রণ, বিদেশ প্রত্যাগত এবং আক্রান্তদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত, স্বাস্থ্য সচেতনা সৃষ্টি ও লকডাউন কার্যকরে নিরলস ভূমিকা রেখে জেলায় বিপুল প্রশংসা কুড়িয়েছেন ইউএনও তাপ্তি চাকমা।

বাসায় ইউএনও’র দুই বছরের দুগ্ধপোষ্য এক ছেলে, স্বামী, শাশুড়ি ও কাজের মেয়ে রয়েছেন। তারা সবাই ভালো আছেন। রোববার তারাও করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। তিনি তার দুগ্ধপোষ্য ছেলে ও পরিবারের সবার জন্য দোয়া চেয়েছেন। পাশাপাশি উপজেলার সবাইকে সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

ইউএনও তাপ্তি চাকমা বলেন, আমার করোনা পজিটিভ এসেছে। তবে তেমন কোনো উপসর্গ নেই। শুধু সাধারণ হালকা গলা ব্যথা আছে। তবে শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ আছি।  গত ২২ জুন সকালে উপজেলা পরিষদের একজনের ফাইল সই করেছি, বিকেলে ওই ব্যক্তির করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ২৫ জুন আমিসহ আমার গাড়িচালক, পিয়ন ও নাইট গার্ডের নমুনা পরীক্ষা করাই এবং আমাদের ক্লোজ কন্টাক্টে যারা আসেন তাদেরও পরীক্ষার জন্য বলি। যেহেতু জ্বর, কাশি কিছুই নেই, তাই ডক্টর শুধু ভিটামিন, জিংক, ভিটামিন-সি এই জাতীয় ওষুধ দিয়েছেন। সঙ্গে গরম পানি খেতে বলেছেন, তাই করছি।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি
সারাদেশ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর