আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
রাঙামাটিতে ছাত্রদলের বিক্ষোভ সমাবেশে দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি
  • রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৮

  • || ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

CoronaBanner

করোনা আপডেট

০৪ ডিসেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ

আক্রান্ত

১৭৬

সুস্থ

১৬২

মৃত্যু

রাঙ্গামাটি

আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে নতুন করে আরো ১ জন করোনায় আক্রান্ত। মোট আক্রান্ত- ৪২৩৩, মোট সুস্থ- ৪১৯৩, মোট মৃত্যু ৩৪ জন।

প্রাণচাঞ্চল্য ফিরেছে কাপ্তাই হ্রদে, ১ম দিনে ২ কোটি টাকার মাছ আহরণ

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ১ সেপ্টেম্বর ২০২১  


রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদ থেকে প্রথম দিনে ২ কোটি টাকার মাছ আহরিত হয়েছে। বিএফডিসি কর্তৃপক্ষের বেঁধে দেয়া নিয়মের মধ্যে রাঙামাটিতে প্রথম দিনেই ১২৫ মেট্রিক টন মাছ আহরিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএফডিসি’র ব্যবস্থাপক মোঃ কমান্ডার তৌহিদুল ইসলাম। এতে সরকারের রাজস্ব আদায় হয়েছে ২১ লক্ষ ৮৭ হাজার ৫০০ টাকা। তিনি জানান, যার আনুমানিক বাজার মুল্য হবে প্রায় ২ কোটি টাকা। দ্বিতীয় দিনে মাছ আহরণের পরিমান আরো বাড়তে পারে বলে জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, রাঙামাটি অবতরণ ঘাটে বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৬৫ মেট্রিক টন মাছ ল্যান্ডিং হয়েছে। এছাড়া কাপ্তাই অবতরণ ঘাটে ৪৫ মেট্রিক টন, মহালছড়ি অবতরণ ঘাটে ১৩ মেট্রিক টন এবং লংগদু অবতরণ ঘাটে ২ মেট্রিক টন মাছ ল্যান্ডিং হয়েছে বলে তিনি সাংবাদিকদের উল্লেখ করেন।

রাঙামাটি মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির নেতা উদয়ন বড়ুয়া জানান, ইতিমধ্যে রাঙামাটি অবতরণ ঘাট থেকে প্রায় ২৫টির মতো ট্রাক চট্টগ্রাম ও ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। বাজার ভালো হলে আমরা জেলেদের পয়সা দিতে পারবো। গত বছর করোনার কারণে আমরা ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি। প্রতিটি ব্যবসায়ী ব্যাপক লসে ছিলো। আশা করছি বাজার ভালো পেলে আমাদের ক্ষতি কিছুটা কমে আসবে।

উল্লেখ্য, রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে ৪ মাস বন্ধ থাকার পর আজ ১ সেপ্টেম্বর মধ্যরাত থেকে শুরু হয় মাছ শিকার। বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন বিএফডিসি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ায় রাতেই হ্রদে মাছ শিকার করে জেলেরা। ফিসারী ল্যান্ডিং ঘাটে মাছ নিয়ে এসে জেলা শহরের বাইরে সরবরাহ শুরু করেছে ব্যবসায়ীরা। মাছ শিকার শুরু হওয়ায় প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরেছে জেলেদের মাঝে।

এদিকে দীর্ঘ দিন হ্রদে মাছ শিকার বন্ধ থাকার পর আবারো হ্রদে মাছ আহরণ শুরু করতে পারায় খুশি হয়ে জেলেরা বলেন, কাপ্তাই হ্রদে পানি কম থাকায় খুবই সীমিত আকারে হ্রদে জাল ফেলা হচ্ছে। তবে বিএফডিসি’র বেঁধে দেওয়া নিয়মে জাল নিয়ে মাছ শিকার করা হচ্ছে। এবারে মাছের সাইজ মোটমুটি ভালো আছে। 

বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন বিএফডিসি, রাঙামাটির উপ-ব্যবস্থাপক বিপনন মোঃ জাহিদুল ইসলাম জানান, কাপ্তাই হ্রদে মাছের প্রজনন ও কার্প জাতীয় মাছের বংশ বৃদ্ধির জন্য প্রতি বছর ১লা মে থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত তিন মাস মাছ শিকার ও বাজারজাত বন্ধ থাকে। কিন্তু এ বছর পাহাড়ে পর্যাপ্ত বৃষ্টির না হওয়ায় হ্রদের পানি বাড়েনি। তাই এ বছর মাছের ডিম ছাড়ার সুবিধার্থে মাছ শিকারের নিষেধাজ্ঞা আরো এক মাস বাড়ানো হয়।

তিনি আরো জানান, কাপ্তাই হ্রদের মাছ শিকারে এবার নতুন কিছু নিয়ম করে দেয়া হয়েছে। জালের দৈর্ঘ-প্রস্থ ও ছিদ্র কতটুকু রাখবে তা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। এতে পোনা মাছ রক্ষা করা যাবে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ৭শ ২৫ বর্গকিলোমিটার আয়তনের রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের ওপর ২৫ হাজার জেলে পরিবার সহ প্রায় লক্ষাধিক শ্রমজীবী মানুষ জীবিকা নির্বাহ করে থাকে।

 
আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি