আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
বাঘাইছড়িতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু জেএসএস (সন্তু)’র সামরিক কমান্ডার আবিষ্কার চাকমাকে গুলি করে হত্যা
  • মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৮

  • || ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

CoronaBanner

করোনা আপডেট

২৯ নভেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ

আক্রান্ত

২২৭

সুস্থ

২৮০

মৃত্যু

রাঙ্গামাটি

আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে নতুন করে আরো ১ জন করোনায় আক্রান্ত। মোট আক্রান্ত- ৪২৩০, মোট সুস্থ- ৪১৯৩, মোট মৃত্যু ৩৪ জন।

রাঙামাটিতে পূর্ণিমা চাকমার মৃত্যু ঘিরে রহস্য, থানায় হত্যার অভিযোগ

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ২ নভেম্বর ২০২১  

কলেজছাত্রী পূর্ণিমা চাকমা। ফাইল ছবি

রাঙামাটিতে কলেজছাত্রী পূর্ণিমা চাকমার রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ এনে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে পরিবার। সোমবার (১লা নভেম্বর) রাতে রাঙামাটির কোতোয়ালি থানায় অভিযোগটি দায়ের করেছেন নিহত পূর্ণিমা চাকমার মামাতো ভাই পলাশ চাকমা।

রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ওসি মো: কবির হোসেন অভিযোগ দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, কলেজছাত্রী পূর্ণিমা চাকমার এক আত্মীয় অভিযোগ জমা দিয়েছেন। এ ঘটনায় আগেই একটি অপমৃত্যু মামলা রয়েছে। পুলিশ তদন্ত করছে এবং ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে বিষয়টি আর পরিস্কার হবে।

পলাশ চাকমা বলেন, গত ২৯ অক্টোবর দুপুরে পূর্ণিমা চাকমার লাশ রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নেন মল্লিকা দেওয়ান ও অঞ্জলী চাকমা। পূর্ণিমা আত্মহত্যা করেছেন বলে অপপ্রচার চালাতে থাকেন তারা। পরে পূর্ণিমার গৃহকর্ত্রী মল্লিকা দেওয়ান ও নিকিতা দেওয়ানের কাছে মৃত্যুর বিষয়টি জানতে চাই। কিন্তু তাদের রহস্যজনক উত্তর ও আচরণে বুঝতে পারি আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আমার বোনকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে অপপ্রচারের পর মল্লিকা দেওয়ান ও তার পরিবারের লোকজনকে আমাদের ক্ষতিপূরণ হিসেবে টাকা দিয়ে সমঝোতার চেষ্টা করেন। কিন্তু আমরা তো টাকা দিয়ে দফারফা করতে চাই না। টাকা দিয়ে তো বোনকে ফিরে পাব না। আমরা বোন হত্যার বিচার চাই। সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিচার চাই।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) দুপুরে কলেজছাত্রী পূর্ণিমাকে অচেতন অবস্থায় রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় কলেজছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনা শুনে উধাও হয়ে যান হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া ব্যক্তিরা। ঘটনার পরদিন দুপুরে পূর্ণিমা চাকমার ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে পুলিশ।

 কলেজছাত্রী পূর্ণিমা চাকমা ‘হত্যার’ বিচার দাবিতে মানববন্ধন।


এদিকে, কলেজছাত্রী পূর্ণিমা চাকমার রহস্যজনক মৃত্যুকে হত্যাকাণ্ড দাবি করে ঘটনার বিচার ও জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে সহপাঠী ও স্বজনরা। গত সোমবার (১লা নভেম্বর) সকাল ১০টায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের ফটকের সামনে দেড় ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানায় পূর্ণিমার সহপাঠী, আত্মীয়স্বজন ও সাধারণ মানুষ।

প্রসঙ্গত, কলেজছাত্রী পূর্ণিমা চাকমা জেলার জুরাছড়ি উপজেলার ৪ নম্বর দুর্গম দুমদুম্যা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বগাখালী এলাকার সাধন চাকমার মেয়ে। তিনি রাঙামাটি সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন। পড়ালেখার কারণে জেলা শহরের রাজবাড়ী এলাকার মল্লিকা দেওয়ানের বাসায় থাকতেন। পূর্ণিমাকে মল্লিকা দেওয়ানের বাসায় রাখার ব্যবস্থা করে দেন জুরাছড়ি উপজেলার বাসিন্দা অঞ্জলী চাকমা (গান্ধী)। এ ঘটনার পর থেকে মল্লিকা দেওয়ান ও গান্ধী চাকমার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি