• রাঙামাটি

  •  মঙ্গলবার, জুলাই ৫, ২০২২

নগর জুড়ে

কাল থেকে রাঙামাটিতে অভ্যন্তরীন ৬ উপজেলায় নৌ চলাচল শুরু

রাঙামাটি (সদর) প্রতিনিধিঃ-

 প্রকাশিত: ২০:০১, ২১ জুন ২০২২

কাল থেকে রাঙামাটিতে অভ্যন্তরীন ৬ উপজেলায় নৌ চলাচল শুরু
ফাইল ছবি 

অতি ভারী বষর্ণে রাঙামাটি সীমান্তের ওপারের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সুবলং চ্যানেলে পানির তীব্র স্রোতে কারনে দূর্ঘটনার আশঙ্কায় বন্ধ থাকা ৬টি নৌ-রুটে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল শুরু হচ্ছে আগামীকাল বুধবার।  

গত সোমবার ও মঙ্গলবার দুইদিন লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকার পর আগামীকাল বুধবার (২২ জুন) থেকে আবারো রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে পূর্বের নিয়মানুযায়ী লঞ্চ চলাচল শুরু করবে।

মঙ্গলবার (২১ জুন) দুপুরে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল ও যাত্রী পরিবহন সংস্থার রাঙামাটি লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি মঈনুদ্দিন সেলিম

তিনি জানান, ‘রাঙামাটিতে টানা ভারী বৃষ্টির কারণে কাপ্তাই হ্রদের পানি বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে সুবলং চ্যানেলে তীব্র স্রোতে স্বাভাবিক লঞ্চ চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছিলো। তাই ভারি বর্ষণ ও স্রোতের কারণে দূর্ঘটনা এড়াতে সোমবার (২০ জুন) থেকে রাঙামাটির সব নৌ-রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দিই। মঙ্গলবার (২১ জুন) বৃষ্টিপাত স্বাভাবিক হয়ে আসায় এবং সুবলং চ্যানেলে পানির স্রোত কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে যাওয়ায় বুধবার (২২ জুন) সকাল থেকে পূর্বের ন্যায় আবারো লঞ্চ চলাচল শুরু করা হবে।’

উল্লেখ্য, গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণ এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে কাপ্তাই হ্রদের সুবলং চ্যানেলে তীব্র স্রোত সৃষ্টি হওয়ায় বড় ধরণের দুর্ঘটনা এড়াতে হ্রদের ৬টি নৌ পথে গত দু’দিন ধরে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রেখেছিলো লঞ্চ মালিক সমিতি। মঙ্গলবার সকাল থেকে বৃষ্টিপাত বন্ধ হওয়ায় এবং নদীর স্রোত কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ায় বুধবার সকাল থেকে লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক করার ঘোষণা দেয় লঞ্চ মালিক সমিতির নেতারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১০ উপজেলা নিয়ে গঠিত দেশের সবচেয়ে বড় জেলা রাঙামাটির ৭ উপজেলার সঙ্গে নৌ-পথে চলাচলের সুযোগ রয়েছে৷ তবে কাপ্তাই উপজেলায় লঞ্চ চলাচল না করলেও অন্য ৬টি উপজেলা বিলাইছড়ি, জুরাছড়ি, বরকল, লংগদু, বাঘাইছড়ি ও নানিয়ারচরে নিয়মিত লঞ্চ যাওয়া আসা করে। এর মধ্যে বিলাইছড়ি, জুরাছড়ি, বরকল, লংগদু ও বাঘাইছড়ির মানুষ জেলা সদর থেকে সরাসরি সড়ক পথে যাতায়াতের সুযোগ নেই। লংগদু-বাঘাইছড়ির সঙ্গে সড়ক পথ থাকলেও সেটি খাগড়াছড়ির দীঘিনালা হয়ে যেতে হয়।

মন্তব্য করুন: