আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
রাত পোহালেই চিৎমরমে ভোট: পরস্পরের বিরুদ্ধে দুই প্রার্থীর অভিযোগ ইউপিডিএফ’র আস্তানায় যৌথবাহিনীর অভিযান: অস্ত্র ও গােলাবারুদ উদ্ধার
  • রোববার   ২৮ নভেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৮

  • || ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

CoronaBanner

করোনা আপডেট

২৭ নভেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ

আক্রান্ত

১৫৫

সুস্থ

১৮৮

মৃত্যু

রাঙ্গামাটি

আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত নাই। মোট আক্রান্ত- ৪২২৭, মোট সুস্থ- ৪১৯২, মোট মৃত্যু ৩৪ জন।

কাপ্তাই লেকে স্পীড বোটের ধাক্কায় বরকল উপজেলায় প্রাণ গেল যুবকের

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ২৫ এপ্রিল ২০২১  

প্রতীকি ছবি 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ- বরকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মনজুরুল হকের স্পীড বোটের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ইঞ্জিনচালিত ছোট নৌকার এক যাত্রী পানিতে ডুবে মারা গেছে। নিহতের নাম শান্তি রঞ্জন চাকমা (৩৭)। তার বাড়ি সুবলং ইউনিয়নের শিলারধাক গ্রামে বলে জানা গেছে। রোববার দুপুরে বরকল উপজেলার সুবলং ইউনিয়নের সুবলং ঝর্ণার পাশে এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকালে সুবলং ঝর্ণা এলাকা ও শিলারধাক গ্রাম পরিদর্শনে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রকৌশলী। সেখান থেকে ফেরার পথে বিপরীত দিক থেকে আসা ইঞ্জিনচালিত একটি ছোট নৌকার সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার স্পীড বোটটির ধাক্কা লাগে। এতে মাথায় ও কাঁধে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে পানিতে ডুবে মারা যান শান্তি রঞ্জন চাকমা।

প্রত্যক্ষদর্শী সুবলং ঝর্ণার পর্যটন কেন্দ্র ও রেস্টুরেন্ট ব্যবস্থাপক নিরঞ্জয় চাকমা বলেন, নিহত শান্তি রঞ্জন চাকমা ও স্থানীয় বিমল চাকমা রোববার সুবলং থেকে ফিরছিলেন। ফেরারপথে ইউএনও’র স্পীড বোটটির সঙ্গে তাদের ছোট নৌকাটির ধাক্কা লাগে। বিমল চাকমা পানিতে লাফ দিয়ে প্রাণে বাঁচলেও শান্তি রঞ্জন চাকমা আঘাত প্রাপ্ত হয়ে পানিতে ডুবে নিহত হন। তাঁর মাথায় আঘাত লেগেছে এবং ডান দিকের কাঁধ ভেঙ্গে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল রোববার বিকেলে তার মরদেহ উদ্ধার করেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বরকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মোঃ জসিম উদ্দিন জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বরকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মনজুরুল হক বলেন, সুবলং ঝর্ণাটি সচল রাখার বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী সকালে সেখানে গিয়েছিলাম। সেখান থেকে ফেরার পথে এ দুঃখজনক দূর্ঘটনাটি ঘটলো। আমাদের স্পীড বোটেও ছিদ্র হয়েছে। ঘটনার পরপরই স্থানীয় সেনাক্যাম্প কমান্ডার ও পুলিশের কাছ থেকে উদ্ধারকারী ডুবুরি দলের সঙ্গে যোগাযোগ করি। কিন্তু তাদের ডুবুরি না থাকায় রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের সহায়তায় বিকেলে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর আগে মরদেহ উদ্ধারের জন্য স্থানীয় চেয়রম্যানের হাতে ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে। দাহ ক্রিয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেয়া হবে। অপ্রত্যাশিত ও অনাকাঙ্খিত এ দূর্ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন বরকল উপজেলার ইউএনও।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি