আলোকিত রাঙামাটি
ব্রেকিং:
রাঙামাটিতে শেখ কামালের ৭২তম জন্মদিন উপলক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পণ লংগদুতে চাঁদা না পেয়ে পাহাড়ী সন্ত্রাসীদের অতর্কিত হামলায় ৩ কাঠুরিয়া আহত
  • বৃহস্পতিবার   ০৫ আগস্ট ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ২২ ১৪২৮

  • || ২৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে করোনায় নতুন আক্রান্ত আরো ৩৮ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন- ৩০৮৮, মোট সুস্থ- ২২৩৩, মোট মৃত্যু ২৭ জন।

জুরাছড়িতে জেএসএস (সন্তু)’র সন্ত্রাসীদের গুলিতে কার্বারী নিহত

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ১৪ জুন ২০২১  

জেএসএস (সন্তু)’র সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত কার্বারী পাত্থুরমনি চাকমা। ছবি :আলোকিত রাঙ্গামাটি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ- রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলার লুলাংছড়িতে জেএসএস (সন্তু)’র সন্ত্রাসীদের গুলিতে গ্রাম প্রধান কার্বারী নিহত হয়েছে। নিহত কার্বারীর নাম পাত্থুরমনি চাকমা। 

রোববার (১৩ জুন) রাত ৯ টার দিকে নিজ বাড়ীতে জেএসএস (সন্তু)’র সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয় পাত্থুরমনি চাকমা। এই ঘটনায় এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। জুরাছড়ি উপজেলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শফিউল আজম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার রাতে গ্রাম প্রধান কার্বারী পাত্থুরমনি চাকমা নিজ বাড়ীতে অবস্থান করছিলেন। এ সময় জেএসএস (সন্তু)’র কয়েকজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী তার উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং সন্ত্রাসীরা তাকে গুলি করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এই হামলায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করেন কার্বারী পাত্থুরমনি চাকমা।

জুরাছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফিউল আযম জানান, আমরা খবর পেয়েছি। লুলাংছড়ির কার্বারী পাত্থুরমনি চাকমাকে গুলি করা হয়েছে। সে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করে বলে স্থানীয়দের সুত্রে জানা গেছে। ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী ও পুলিশ সদস্যরা রওনা হয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে। 



উল্লেখ্য, পার্বত্য অঞ্চলের আঞ্চলিক সংগঠন গুলোর আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চলমান হত্যা যজ্ঞ দীর্ঘদিন বন্ধ ছিলো। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর রোববার রাতে রাঙামাটির জুরাছড়ি উপজেলার লুলাংছড়িতে কার্বারীকে গুলি করে হত্যা করে জেএসএস (সন্তু)’র সন্ত্রাসীরা।

এদিকে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্তু লারমার ইন্ধনে আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদাবাজির হার নিরঙ্কুশ রাখতে এলাকার নিয়ন্ত্রণ ও মতের ভিন্নতা আর অভ্যন্তরীণ কোন্দলে খুন- খারাবি ও অপহরণসহ নানা অপতৎপরতায় জড়িয়ে রয়েছে জেএসএস (সন্ত)’র সংগঠনের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। নিজেদের নিয়ন্ত্রণে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র থাকায় যে কোন সময়েই প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীদের গুম, হত্যা করা ‘মামুলি বিষয়’ হয়ে দাঁড়িয়েছে। জেএসএস (সন্ত)’র অস্ত্রধারীদের হাতে পাহাড়ী লোকজন ‘টার্গেট কিলিং’ এর শিকার হচ্ছেন। এতে আতঙ্কের জনপদে পরিণত হয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম। এখানে বসবাসরত সাধারণ পাহাড়ি-বাঙালীদের মধ্যে সর্বদা অশান্তি সৃষ্টির মাধ্যমে আতঙ্ক তৈরি করে পাহাড়ে উচ্চ বিলাসি ‘সন্ত্রাসীর স্বর্গরাজ্য’ তৈরি করতে চায় জেএসএস (সন্তু)’র সংগঠনের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। 
 

 
আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি