আলোকিত রাঙামাটি
  • সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১৩ ১৪২৮

  • || ১৯ সফর ১৪৪৩

CoronaBanner

করোনা আপডেট

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ

আক্রান্ত

৯৮০

সুস্থ

১৩১২

মৃত্যু

২১

রাঙ্গামাটি

আক্রান্ত

সুস্থ

১০

মৃত্যু

সর্বশেষ:
রাঙামাটিতে করোনায় নতুন আক্রান্ত আরো ০৪ জন। মোট আক্রান্ত হয়েছেন- ৪১৫৪, মোট সুস্থ- ৪০২৩, মোট মৃত্যু ৩৩ জন।

টিকা নিয়ে আবারও হেলিকপ্টারে বিলাইছড়ির দুর্গম বড়থলিতে প্রশাসন

আলোকিত রাঙামাটি

প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১  

বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম বড়থলি ইউনিয়নে করোনার দ্বিতীয় ডোজ টিকা দিতে হেলিকপ্টারে রওনা হচ্ছেন প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ। মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১০টায় কাপ্তাই হেলিপ্যাড থেকে তোলা ছবি।


মোঃ নজরুল ইসলাম লাভলু, কাপ্তাইঃ- রাঙামাটি জেলাধীন বিলাইছড়ি উপজেলার ৪নং বড়থলি ইউনিয়নে ফের করোনার গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে হেলিকপ্টারে রওনা হলেন বিলাইছড়ি উপজেলা প্রশাসন এবং স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল পৌনে ১০টায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র এলাকার হেলিপ্যাড থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রশ্মি চাকমার নেতৃত্বে ৫ জন স্বাস্থ্য কর্মী দ্বিতীয় পর্যায়ে এই গণটিকা কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছেন বলে স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

বিলাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান জানান, গত মাসের ১০ আগস্ট রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, সেনাবাহিনী, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, জেলা সিভিল সার্জন এবং বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর বিশেষ উদ্যোগে তারা দুর্গম বড়থলি ইউনিয়নে গণটিকাদান কার্যক্রম সফল করেন। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার তারা ওই এলাকায় গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রদান করার জন্য রওনা করেছেন।

তিনি আরো জানান, গণটিকার প্রথম ডোজ গ্রহণে ওই এলাকার জনগণের যে উচ্ছাস সেদিন দেখেছি, তা তাদেরকে আরো বেশী অনুপ্রাণিত করেছে।

বিলাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রশ্মি চাকমা জানান, গত ১০ আগস্ট তারা ওই এলাকায় ২শ' ৯২ জনকে সিনোফার্মার প্রথম ডোজ দিয়েছেন। সে সাথে ওইদিন স্বাস্থ্য বিভাগ হতে চিকিৎসা সেবা, ইপিআই কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। একই ভাবে দুর্গম বড়থলি ইউনিয়নে পুনরায় ২শ’ ৯২ জনকে টিকা প্রদান করা হবে। এছাড়া সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে ট্রাইবেল হেলথ কর্মসূচির আওতায় মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্পের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবা দেয়া হবে ওই এলাকায়। 

প্রসঙ্গত, বিলাইছড়ি উপজেলা হতে ফারুয়া ইউনিয়ন হয়ে পায়ে হেঁটে এই ইউনিয়নে যেতে কমপক্ষে সময় লাগবে ৪ দিন। আবার বান্দরবান জেলার রুমা উপজেলার বগালেক হতে পায়ে হেঁটে যেতে লাগে ২ দিন।

আলোকিত রাঙামাটি
আলোকিত রাঙামাটি