• রাঙামাটি

  •  শুক্রবার, জুলাই ১, ২০২২

রাঙ্গামাটি

দুর্গম বড়থলিতে হেলিকপ্টারে করে করোনা টিকা পৌঁছে দিলো সেনাবাহিনী

 প্রকাশিত: ২২:৩২, ৭ অক্টোবর ২০২১

দুর্গম বড়থলিতে হেলিকপ্টারে করে করোনা টিকা পৌঁছে দিলো সেনাবাহিনী
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টারে বিলাইছড়ি উপজেলার দূর্গম ৪ নং বড়থলি ইউনিয়নে টিকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।  ছবি:- আলোকিত রাঙ্গামাটি

রকারের করোনা গণটিকাদান কার্যক্রম দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যে হেলিকপ্টারে করে দুর্গম পার্বত্য অঞ্চলে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন পৌঁছে দিচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।

তারই ধারাবহিকতায় তৃতীয় বারের মতো বৃহস্পতিবার ১০টায় কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের হেলিপ্যাড থেকে আবারও করোনার টিকা নিয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারে রাঙামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম ৪নং বড়থলি ইউনিয়নে রওনা হলেন বিলাইছড়ি উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের ৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি টিম। এছাড়া বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩ জন মেডিকেল সদস্য রয়েছে এই টিমে।

বিলাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ মিজানুর রহমান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রশ্মি চাকমা এই টিমের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। 

বিলাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, এবার দূর্গম বড়থলি ইউনিয়নের রাইখ্যং লেক সংলগ্ন পুকুরপাড়া এলাকায় গণটিকার আওতায় সিনোফার্মের ১ম ডোজ টিকা দেওয়া হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রশ্মি চাকমা জানান, তারা ১৫শ' ডোজ টিকা নিয়ে যাচ্ছেন। যথারীতি টিকাদানের পাশাপাশি মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্পের আওতায় ওই এলাকায় স্বাস্থ্য সেবাও দেয়া হবে। এমন দুর্গম এলাকায় বরাবরের মতই স্বাস্থ্য বিভাগকে সহযোগিতা করার জন্য রাঙামাটি জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানান এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। 

উল্লেখ্য, পার্বত্য এলাকার যেকোন দূর্যোগকালীন সময় দুর্গম এলাকাগুলোতে ত্রাণ পৌঁছানো থেকে শুরু করে চিকিৎসা সেবার কাজে সেনাবাহিনী বিশেষ ভূমিকা রেখে আসছে।


বিলাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানুর রহমান জানান, ইতিপূর্বে বাংলাদেশের সবচেয়ে দুর্গম বড়থলি ইউনিয়নের বড়থলি পাড়ায় গত ১০ আগস্ট গণটিকার প্রথম ডোজ এবং গত ১৪ সেপ্টেম্বর গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রদান করা হয়েছিল। তারই ধারাবাহিকতায় সমগ্র ইউনিয়নকে টিকার আওতায় আনার জন্য ইউনিয়নের অপর প্রান্ত অপরুপ রাইখ্যং লেক সংলগ্ন পুকুর পাড়ায় আজ (বৃহস্পতিবার) গণটিকার প্রথম ডোজ প্রদান করা হবে। তিনি এই টিকা কার্যক্রমে সহযোগিতা করার জন্য রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার, সেনাবাহিনী, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, জেলা সিভিল সার্জনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। 

প্রসঙ্গত, পার্বত্য এলাকার যেকোন দূর্যোগকালীন সময় দুর্গম এলাকাগুলোতে ত্রাণ পৌঁছানো থেকে শুরু করে চিকিৎসা সেবার কাজে সেনাবাহিনী বিশেষ ভূমিকা রেখে আসছে। এভাবে দুগর্ম এলাকায় সেনাবাহিনীর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় টিকা কার্যক্রম পরিচালনা করতে পেরে জেলা প্রশাসন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা সেনাবাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

দেশের প্রয়োজনে পার্বত্য চট্টগ্রামে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এমন সহযোগিতা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে জানান সেনা কর্মকর্তারা।

 

আলোকিত রাঙামাটি

মন্তব্য করুন: