• রাঙামাটি

  •  রোববার, অক্টোবর ২, ২০২২

রাঙ্গামাটি

রাঙামাটিতে জেএসএস-ইউপিডিএফ গোলাগুলি: নিহত ১

লংগদু প্রতিনিধিঃ-

 আপডেট: ২১:৩৯, ২৪ আগস্ট ২০২২

রাঙামাটিতে জেএসএস-ইউপিডিএফ গোলাগুলি: নিহত ১

প্রতীকী ছবি

 


রাঙামাটিতে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) ও প্রসীত খিসার নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) সদস্যদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) রাত ৮টার দিকে লংগদুর উপজেলার দুর্গম লংগদু ইউনিয়নের ছোট কাট্টলী হতে ১কিঃ মিঃ পাহাড়ের উপরে লংগদু-নানিয়ারচর উপজেলা সীমান্তের কুকিছড়া এলাকায় জেএসএস (সন্তু) দলের সশস্ত্র কমান্ডার দিপ্ত চাকমার নেতৃত্ব একটি সশস্ত্র দল ও ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের শ্রাবণ চাকমার নেতৃত্বে একটি সশস্ত্র দলের মধ্যে মুখোমুখি আনুমানিক ৫০/৬০ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এতে শ্যামল চাকমা ওরফে বিম নামে ইউপিডিএফ’র এক সশস্ত্র সন্ত্রাসী নিহত হয় বলে জানা যায়। নিহত শ্যামল চাকমা নানিয়ারচর উপজেলার গবাছড়ি এলাকার ফুলেশ্বর চাকমা’র ছেলে।

এদিকে, ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা নিহত শ্যামল চাকমার লাশ নিয়ে গেছে এবং গোপনে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া করবে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

ইউপিডিএফের মুখপাত্র অংগ্য মারমা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লংগদুর ছোট কাট্টলীতে ইউপিডিএফের সদস্যরা অবস্থানকালে জেএসএস (সন্তু) দলের সন্ত্রাসীরা অতর্কিত হামলা করে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলিতে ইউপিডিএফের একজন কর্মী নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনার জন্য সন্তু লারমাকে দায়ী করে তিনি বলেন, সন্তু লারমা ভাতৃঘাতী সংঘাতকে উসকে দিচ্ছেন। আমরা এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাই।

লংগদু থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি (তদন্ত) সানজিদ আহম্মেদ জানান, নানিয়ারচর লংগদু সীমান্তে সাবেক্ষং এলাকায় গতকাল সন্ধ্যার ৮টার পর গোলাগুলির সংবাদ পেয়েছি। ইতোমধ্যে সেনাবাহিনীর একটি টহল দল সেখানে গিয়েছে। বিস্তারিত পরে জানানো যাবে। 

 

মন্তব্য করুন: