• রাঙামাটি

  •  শনিবার, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২৩

রাঙ্গামাটি

জুরাছড়িতে পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বর্ষপূর্তি উদযাপন

জুরাছড়ি প্রতিনিধিঃ-

 আপডেট: ১৭:০৫, ২ ডিসেম্বর ২০২২

জুরাছড়িতে পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বর্ষপূর্তি উদযাপন

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে পার্বত্য চট্টগ্রামে দীর্ঘদিনের সংঘাত শান্তিতে রূপ নিয়ে ছিল। ১৯৯৭ সালে ২ ডিসেম্বর তার উড়িয়ে দেওয়া সাদা পায়রা রূপ নিয়ে ছিল শান্তির প্রতীকে-যা আজো বিদ্যমান।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) জুরাছড়ি উপজেলায় পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভায় জোন উপ-অধিনায়ক মেজর মোঃ এহতে শামুল হক একথা বলেন।

জুরাছড়ি সেনা জোনের অদ্বিতীয় দুই এর উদ্যোগে উপজেলা মাঠে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় জোন উপ-অধিনায়ক মেজর মোঃ এহতে শামুল হকের নেতৃত্বে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিতেন্দ্র কুমার নাথ, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ শফিউল আজম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আল্পনা চাকমা উপস্থিত ছিলেন।

রির্সোস সেন্টারের ইন্সট্রাক্টটর মোঃ মরশেদুল আলমের ধারা চঞ্চলনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, কুসুমছড়ি মৌজার হেডম্যান মায়া নন্দ দেওয়ান,  বনযোগীছড়া ইউপি চেয়ারম্যান সন্তোষ বিকাশ চাকমা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার অনন্যা চাকমা, ভাইস চেয়ারম্যান রিটন চাকমা, বাজার সমিতির সভাপতি তপন কান্তি দে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার অনন্যা চাকমা বলেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তির ফলে স্বাস্থ্য বিভাগের ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কিংবা কমিউনিটি ক্লিনিকের পর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহ ও দক্ষ মেডিকেল অফিসার পদায়ন করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, শহরের এলাকার মোটই জুরাছড়ি মত দুর্গম এলাকায় ১০ জন সহকারি সার্জন দায়িত্ব পালন করছেন। দুর্গম এলাকায় কোভিড-১৯ টিকা হেলিকপ্টারে প্রদান করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিতেন্দ্র কুমার নাথ বলেন, সেনাবাহিনীর অবদানে পার্বত্য চট্টগ্রামে সুবাতাস বইছে।

এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা বলেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তির ফলে পাহাড়ের উন্নয়নের সু-বাতাস বয়ে আনছে। বাংলাদেশ সেনা বাহিনীর সম্মত না হলে পার্বত্য শান্তি চুক্তি সম্পাদন সম্ভব ছিলনা। সেনাবাহিনীর অগ্রনী ভূমিকা রাখলেই পার্বত্য শান্তি চুক্তি যথাযথ বাস্তবায়ন সম্ভব।

আলোচনা সভা শেষে উপজেলা পরিষদ থেকে র‌্যালি বের করে থানা, যক্ষা বাজার প্রদক্ষিণ করে শিশুপার্কের ফটকে এসে শেষ হয়।

এদিকে, পার্বত্য শান্তি চুক্তি উপলক্ষে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, দরিদ্রদের সহায়তা, শিক্ষা উপকরণ বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে সেনাবাহিনী।

মন্তব্য করুন: