• রাঙামাটি

  •  মঙ্গলবার, জুলাই ৫, ২০২২

রাঙ্গামাটি

রাঙামাটিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে প্রায় ২০ বসতঘর পুড়ে ছাঁই, প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

 আপডেট: ১০:২২, ১৯ মার্চ ২০২২

রাঙামাটিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে প্রায় ২০ বসতঘর পুড়ে ছাঁই, প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

রাঙামাটি শহরের ওমদামিয়া হিল খানবাড়ী এলাকায় এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে প্রায় ২০টির মতো বসতঘর পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে।

শুক্রবার (১৮ মার্চ ) বিকাল ৫টায় একটি ঘরের রান্নার চুলা থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। প্রথমে স্থানীয় লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলেও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রায় ঘন্টার বেশী সময় ধরে চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। অগ্নিকান্ডে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকারও বেশী ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। ক্ষতিগ্রস্তরা খোলা আকাশের নীচে বসবাস করছে। 

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, শুক্রবার (১৮ মার্চ) বিকালে একটি বাড়ীর রান্নার চুলা থেকে হঠাৎ আগুনের ফুলকী দেখা যায়। মূহুর্তের মধ্যে আগুন চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পাহাড়ের খাজে লেকের পাড় ঘেষা বাড়ীঘর হওয়ায় আগুন চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। লোকজন উপর থেকে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালালেও আগুনের লেলিহান শিখা বেশী থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়। প্রায় এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। 

রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক রফিকুল ইসলাম জানান, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাই। অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত এলাকায় এতো চিপা গলি যে আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগ পেতে হয়। তারপরও অনেক চেষ্টার পর আমরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই।

এদিকে, অগ্নিকান্ডের ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, রাঙামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কবির হোসেন সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, আগুনের খবর পেয়ে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছি। অনেক চিপা গলি হওয়ার কারণে ফায়ার সার্ভিসকে আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারী সহায়তা দেয়া হবে। এছাড়া জরুরী যে কোন সহায়তা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের জন্য করা হবে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য করুন: